বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১২:৪২ পূর্বাহ্ন

ভৈরবে শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ ॥ প্রভাবশালীদের ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা

ভৈরবে শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ ॥ প্রভাবশালীদের ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা

এম.এ হালিম, বার্তাসম্পাদক:
কিশোরগঞ্জের ভৈরবে ৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে রাতের আধারে জোরপূর্বক ধর্ষণের ঘটনায় অর্থের লোভ দেখিয়ে ধামাচাপা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রভাবশালী মহলের বিরুদ্ধে। পরে ধর্ষিতার পরিবারের পক্ষ থেকে বিচার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ দেয়ার পর ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ধর্ষিতাকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বৃহস্পতিবার দুপুরে কিশোরগঞ্জ ওয়ানষ্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ জানায় আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে ।
জানাযায়, শহরের চন্ডিবের কান্দাহাটি গ্রামের বাবা হারা পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী জিহাদী মঙ্গলবার রাতে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিলে বাইরে বের হলে প্রতিবেশী হোসেন আলী জোর পূর্বক তুলে নিয়ে পাশের একঠি ফসলি জমিতে নিয়ে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি এলাকায় জানাজানি হলে বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয় ভাবে এলাকার প্রভাবশালী মহল আপোষ মিমাংসার জন্য ধর্ষণকারিকে জুতা পেঠা করে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে। রায়ে সন্তুষ্টি না হয়ে বুধবার বিকালে শিশুটির পরিবার সুষ্ঠু বিচার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাদেকুর রহমান সবুজের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন। পরে নির্বাহী কর্মকর্তা ভৈরব থানাকে ঘটনাটি তদন্ত করে মামলা দায়েরের অনুরোধ করে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য থানায় পাঠান। পরে শিশুটির পক্ষ থেকে থানায় মামলা দায়ের করা হয়। শালিশানরা জানান, শিশুটি দরিদ্র পরিবার হওয়ায় ভবিষ্যতে তার বিয়ের কথা চিন্তা করে মানবিক বিবেচনায় অভিযুক্ত হোসেন আলীকে জুতা পেটা করে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছিল। কিন্ত শিশুটির পরিবার এ রায় না মানায় তাদেরকে আইনের আশ্রয় নিতে বলেছি।
এ বিষয়ে ধর্ষিতার মা রোজিনা বেগম জানান, তার মেয়ে রাতে ঘর থেকে বের হয়ে টয়লেটে যাওয়ার পথে সোহরাফ জোর পূর্বক ধরে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে সকালে গ্রাম্য সালিশে ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে আপোষ মিমাংসার প্রস্তাব দিলে আমরা তা গ্রহণ করিনি। আমরা থানায় মামলা করেছি। সোহরাফের কঠিন শাস্তির দাবি জানাই।
এ বিষয়ে ৯নং ওয়ার্ড স্থানীয় আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শাহেদ আলী ও অভিযুক্ত সোহরাফের মামাতো ভাই রফিক জানায় ধর্ষণের ঘটনায় সোহরাফকে জুতা পেটা করে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। কিন্ত শিশুটির পরিবার রায় না মানায় আমরা তাদেরকে আইনের আশ্রয় নিতে বলি।
এ বিষয়ে ভৈরব থানার পরিদর্শক তদন্ত মোঃ শাহআলম মোল্লা জানান, শিশুটির পরিবারের পক্ষ থেকে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। আমরা অভিযুক্ত হোসেন আলীকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছি। এছাড়া শিশুটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কিশোরগঞ্জ ওয়ানষ্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠাইছি।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2021
Design By Rana