বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০২:২৯ অপরাহ্ন

খানাখন্দে বেহাল অবস্থা কিশোরগঞ্জের পৌর সড়ক

খানাখন্দে বেহাল অবস্থা কিশোরগঞ্জের পৌর সড়ক

ইমরান হোসেন, কিশোরগঞ্জ:
কিশোরগঞ্জ পৌরসভা এবং সড়ক ও জনপদ বিভাগ (সওজ) এর আওতায় অধিকাংশ সড়ক দীর্ঘদিন যাবৎ মেরামত না থাকার ফলে প্রতিনিয়ত চলছে যানজট ও সড়ক দুর্ঘটনা। খানা-খন্দে ভরা এসব সড়ক দিয়ে চলাচল করছেন পৌরবাসীরা।
পৌরবাসীর অভিযোগ, পৌর কর্তৃপক্ষ এবং সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তরের অবহেলার কারণে এসব দুর্ভোগের মধ্যে দিনে হাজার হাজার পথচারীদের চলাচল করতে হয়। শহরের প্রধান সড়ক বাদে অধিকাংশ কাপের্টিং নষ্ট হয়ে গেছে। অনেক এলাকার রাস্তা খানা-খন্দে ভরা। বর্ধিত এলাকার বাসিন্দাদের ভাষ্য এ শহরকে পৌরসভার অন্তগর্ত করা হলেও পর্যাপ্ত কোনো পৌরসুবিধা আজও পাচ্ছেন না তারা।
বুধবার ২৭ জুলাই সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, শহরের নগুয়া প্রথম মোড় হইতে শেষ মোড় পর্যন্ত ও মোরগ মহাল, আখড়া বাজার, বটতলা হইতে হয়বতনগর মোড় পর্যন্ত ও একরামপুর হইতে জেলা পরিষদ পর্যন্ত নাজেহাল অবস্থা। এসব বেহাল সড়কের জন্য সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তর ও পৌর কর্তৃপক্ষকে দায়ী করছেন স্থানীয়রা।
শহরের সিমেন্ট ব্যবসায়ী মো: শফিকুল ইসলাম ও কনফেকশনারী দোকানী মো: খলিলুর রহমান বলেন, এ এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে সড়ক বেহাল। একটু বৃষ্টি হলেই কাদা জলে একাকার হয়ে যায়। রাস্তার অবস্থা বেহালের কারণে গাড়ি দোকানের সামনে আসতে পারে না। ফলে ঠিক সময়ে মাল ডেলিবারি দিতে পারি না। বিশেষ করে জেলা পরিষদ, আখড়া বাজার, নগুয়া শেষ মোড় পর্যন্ত চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এই সড়কে রিকশা নিয়েও চলাচল করা যায় না।
তিনি আরো বলেন, এসব সড়ক সবগুলো সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন শহরবাসী ছাড়াও অন্যান্য উপজেলার হাজার হাজার মানুষ যাতায়াত করেন। এই সড়কগুলোর দীর্ঘদিন আগেই কাপের্টিং উঠে গেছে। অনেক স্থানে রাস্তার মাঝে বড় বড় গর্ত হয়েছে। পথচারীদের বছরজুড়েই যাতায়াতে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।
সরেজমিনে জানা গেছে, পৌর শহরের নগুয়া শেষ মোড়, মোরগ মহাল, আখড়া বাজার, একরামপুর থেকে জেলা পরিষদের রাস্তাটির অবস্থা খুবই খারাপ। এ রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন শত শত যানবাহন চলাচল করে। এ ছাড়া হাজারো মানুষ পায়ে হেঁটে যাতায়াত করেন। জনবহুল এ রাস্তাটি সংস্কারের অভাবে এলাকাবাসীসহ পথচারীরা দুর্ভোগে রয়েছেন।
অটোরিকশা চালক মো: জজ মিয়া, মো: সাব্বির, মো: মরম মিয়া ও জামাল হোসেন বলেন, এই রাস্তাটির অবস্থা খুবই খারাপ। সড়কটিতে বড় বড় গর্ত থাকায় যাত্রী নিয়ে চলাচল করতে অনেক কষ্ট হয়। অনেক সময় রিকশা উল্টে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। বিশেষ করে গাড়ীর টায়ারের ক্ষতির সম্ভাবনা খুব বেশি।
মো: কামাল উদ্দিন ও রীতা বেগম নামের এক যাত্রী জানান, ‘প্রতিদিন এ রাস্তা দিয়ে আমাদের চলাচল করতে হয়। এ ছাড়া সড়কে ট্রাক্টর ও ভারী যানবাহন চলাচলের কারণে অবস্থা দিন দিন খারাপ হয়ে যাচ্ছে। রোগী নিয়ে এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করলে রোগী আরো অসুস্থ্য হয়ে যায়। সরকার যেন শিগগিরই সড়কটি সংস্কারের ব্যবস্থা নেয়।’
৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো: আফতাব উদ্দিন মিলন বলেন, ‘পৌরসভার বরাদ্ধ না থাকায় এসব রাস্তা মেরামত করতে বিলম্ব হচ্ছে। বরাদ্ধ পেলে দ্রুত কাজ শুরু হবে।’
এ ব্যাপারে কিশোরগঞ্জ পৌর মেয়র মাহমুদ পারভেজ এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।
কিশোরগঞ্জ সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী রিতেশ বড়–য়া বলেন, ‘পৌর শহরের কিছু রাস্তার অবস্থা খারাপ আছে। এগুলো চিহ্নিত করে দ্রুত মেরামত করা হবে।’

 

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2021
Design By Rana