বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:৫৯ অপরাহ্ন

স্বামী-মেয়েসহ অন্তঃসত্ত্বা নিহত, বেঁচে গেল গর্ভের সন্তান

স্বামী-মেয়েসহ অন্তঃসত্ত্বা নিহত, বেঁচে গেল গর্ভের সন্তান

একুশে ডেস্ক:

ময়মনসিংহের ত্রিশালে ট্রাকচাপায় এক পরিবারের তিনজন নিহত হয়েছেন। তারা হলেন, উপজেলার রায়মনি ফকিরবাড়ী গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম, তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী ও ছয় বছরের মেয়ে। গাড়িচাপায় সন্তানসম্ভবা স্ত্রীর পেটের ভেতর থেকে বেরিয়ে আসে নবজাতক। দ্রুত স্থানীয়রা বাচ্চাটিকে হাসপাতালে ভর্তি করে। বাচ্চাটি বেঁচে থাকলেও তার হাতে আঘাত লেগেছে। স্বজন হারিয়ে পরিবারটিতে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। দুর্ঘটনার পর স্বজনদের কান্নায় ভারী হয়ে ওঠে গ্রামের আকাশ-বাতাস।

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ এবং হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে তিনজন করে প্রাণহানি ঘটেছে। এছাড়া বিভিন্ন জেলায় আরও ঝরেছে ১৩ প্রাণ। নিহত-আহতদের মধ্যে ঈদের ছুটি শেষে কর্মস্থলে ফেরা যাত্রীরাও রয়েছেন। ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

ত্রিশাল ও ভালুকা (ময়মনসিংহ) : ত্রিশালে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের কোর্ট ভবন এলাকায় ট্রাকচাপায় এক পরিবারের তিনজন নিহত হয়েছে। এ সময় দুর্ঘটনায় পরা অন্তঃসত্ত্বা নারীর পেটের ভেতর থেকে বেরিয়ে আসে নবজাতক। দুর্ঘটনায় শিশুটিও আহত হয়েছে। জানা যায়, শনিবার দুপুর ২টায় উপজেলার মঠবাড়ী ইউনিয়নের রায়মনি ফকিরবাড়ী গ্রাম থেকে জাহাঙ্গীর আলম (৩৫) তার আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী ও ছয় বছরের কন্যাসন্তানকে নিয়ে আল্ট্রাসনোগ্রাফি করার জন্য ত্রিশাল পৌর এলাকায় আসেন।

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক পারাপারের সময় একটি ট্রাক তাদের চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে জাহাঙ্গীর আলম (৩৫), তার স্ত্রী রত্না বেগম (২৬) ও মেয়ে সানজিদা আক্তার (৬) নিহত হয়। অন্তঃসত্ত্বা রত্না বেগমের পেটে থাকা নবজাতক শিশু চাপ খেয়ে পেট থেকে বেরিয়ে আসে। নবজাতকটিকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে ভার্তি করে। পরে তাকে ময়মনসিংহের কমিউনিটি বেজড মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। ওই হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডের ডাক্তার আরিফ আল নূর জানান, শিশুটির হাতে আঘাত থাকলেও শঙ্কামুক্ত।

এদিকে রায়মনি ফকিরবাড়ী গ্রামে তিনজনের লাশ পৌঁছলে হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। নিহতদের স্বজনদের আহাজারিতে আকাশ-বাতাস ভারী হয়ে ওঠে। পুরো গ্রামে শোকের ছায়া নেমে আসে। নিহতের স্বজন ও প্রতিবেশীরা জানান, সাজানো একটি সংসার শেষ হয়ে গেল। সড়ক দুর্ঘটনা কেড়ে নিল সব স্বপ্ন। ছয় বছরের শিশু সানজিদার লাশ ঘিরে স্বজনরা কান্নায় ভেঙে পড়ে। এসময় কেউ চোখের পানি আটকাতে পারেনি।

নিহত জাহাঙ্গীরের চাচাতো ভাই সাগর মিয়া জানান, জাহাঙ্গীর-রত্না দম্পতির তিন সন্তান। বাড়িতে রয়েছে বড় মেয়ে জান্নাত। তার বয়স ১১। আর ছেলে এবাদতের বয়স আট বছর। এখন বাবা-মাকে হারিয়ে কীভাবে তারা মানুষ হবে, সেই চিন্তা। জাহাঙ্গীরের বোন বারবার মূর্ছা যাচ্ছিলেন। ত্রিশাল থানার ওসি মো. মাইন উদ্দিন জানান, ঘাতক ট্রাকটি জব্দ ও চালককে আটক করা হয়েছে। অপরদিকে ভালুকায় বাসের ধাক্কায় সবুজ মিয়া (২২) নামে এক মিল শ্রমিক নিহত হয়েছেন।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2021
Design By Rana