শুক্রবার, ০১ Jul ২০২২, ১১:১১ পূর্বাহ্ন

পেশিশক্তি দেখালে কঠোর ব্যবস্থা

পেশিশক্তি দেখালে কঠোর ব্যবস্থা

একুশে ডেস্ক:

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেছেন, কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনে কোনো প্রকার অনিয়ম, অন্যায়, জোরজবরদস্তি ও কারচুপি বরদাশত করা হবে না। সুষ্ঠু, অবাধ-নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন আয়োজনে সব ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হবে। কোনো ধরনের অনিয়মের প্রমাণ পাওয়া গেলে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের নির্বাচন বাতিল করা হবে। তিনি আরও বলেন, কেউ পেশিশক্তি দেখানোর চেষ্টা করবেন না। পেশিশক্তি দেখালে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি বলেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির কারণে নির্বাচন ব্যর্থ হলে দায় জেলা প্রশাসক (ডিসি) ও পুলিশ সুপারের (এসপি)। আর সফল হলে প্রশংসা তাদের। তাই নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলার বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণভাবে দেখতে হবে। রোববার নগরীর শিল্পকলা একাডেমিতে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সভায় প্রার্থীদের বিভিন্ন অভিযোগ ও প্রত্যাশার কথা শোনেন সিইসি আউয়াল।

মতবিনিময় সভায় সিইসি কাজী হাবিবুল আউয়াল আরও বলেন, কুমিল্লা সিটি নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে আমরা সব প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছি। প্রার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, এ নির্বাচনে কেউ পেশিশক্তি (ম্যাসেল পাওয়ার) দেখানোর চেষ্টা করবেন না, দলীয় কর্মীদের কেউ পেশিশক্তি দেখাতে উদ্বুদ্ধ করবেন না। কেউ পেশিশক্তি দেখানোর চেষ্টা করলে নির্বাচনি আইন অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। নির্বাচনি অফিস ভাঙচুর করে প্রতিপক্ষকে ফাঁসানোর চেষ্টা করবেন না।

সিইসি আউয়াল বলেন, নির্বাচন কোনো যুদ্ধক্ষেত্র নয়। সবাই মিলে সুস্থ প্রতিযোগিতা করবেন, কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা করবেন না। কেউ আইনভঙ্গ করার চেষ্টা করলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেবে।

সভায় নির্বাচন কমিশনার মো. আলমগীর বলেন, ভোট চলাকালে কেউ জোরজবরদস্তি করার চেষ্টা করলে অথবা অনিয়মের চেষ্টা করলে তাদের প্রার্থিতা বাতিল করতে আমরা দ্বিধাবোধ করব না। নির্বাচন সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে কোনো প্রকার গাফিলতি প্রমাণ পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। নির্বাচনি মাঠে আমাদের লোকজন কাজ করছেন-কোনো অনিয়মের তথ্য পেলে তারা তৎক্ষণাৎ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন। সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য আমরা জেলার বাইরে থেকে নির্বাচন কর্মকর্তাসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য নিয়োগ করেছি। নির্বাচনে সুষ্ঠু পরিবেশ পরিস্থিতি বজায় রাখার লক্ষ্যে এক মাস আগে থেকে আমরা বিজিবি মোতায়েন করেছি। কুমিল্লাবাসীকে আমরা একটি সুন্দর নির্বাচন উপহার দিতে চাই। তিনি আরও বলেন, নির্বাচনে ইভিএম নিয়ে কোনো ধরনের সমস্যা হবে না। নির্বাচনের আগে মক ভোটিং হবে। ইভিএম নিয়ে শঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। নির্বাচনের দিন প্রাকৃতিক দুর্যোগ, ঝড়বৃষ্টি হলে সেটি আমরা দেখব।’

জেলা প্রশাসক কামরুল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের যুগ্মসচিব ফরহাদ আহমেদ খান, রিটার্নিং কর্মকর্তা শাহেদুন্নবী চৌধুরী, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফারুক আহমেদ, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মঞ্জুরুল আলম। সভায় স্বতন্ত্র প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কু, নিজাম উদ্দিন কায়সার, কামরুল আহসান, ইসলামী আন্দোলনের রাশেদুল ইসলামসহ কাউন্সিলর প্রার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। তবে সভায় আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত উপস্থিত ছিলেন না।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2021
Design By Rana