মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৮:০৪ অপরাহ্ন

গুনাহ মুক্ত জীবন হওয়া চাই

গুনাহ মুক্ত জীবন হওয়া চাই

রেদওয়ানুল হক ওয়াসিফ :

আমরা আমাদের জীবনে ইবাদত করি ঠিকই পাশাপাশি আবার গুনাহও করি। আর এইভাবে ইবাদত ও গুনাহ করার মধ্য দিয়েই একদিন নিভে যাবে আমাদের জীবন প্রদীপ। ইবাদতের কারণে যেখানে আমাদের জান্নাতে যাওয়ার কথা কিন্তু সামনে এসে বাধা হয়ে দাঁড়াবে গুনাহের বিশাল পাহাড়। আমরা কি তা কখনো ভেবে দেখেছি। গুনাহ করতে করতে আমরা তওবা করার কথা ভুলেই যাই অথচ মহান আল্লাহ তা’আলা চান আমরা যেনো তার কাছে বেশি বেশি তওবা করি। আর সেই জন্য তিনি দয়া করে আমাদেরকে ক্ষমা করার জন্য বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে তওবা করার সুযোগও করে দেন। যেমন দেখা যায় আমাদের মধ্য থেকে কেউ কেউ মৃত্যুর সময়ে ভীষণ অসুস্থতায় ভোগেন এতে করে তার তওবার সুযোগ হয়। অসুস্থতার কষ্ট ও তওবার কারণে মহান আল্লাহ তা’আলা তাকে ক্ষমা করে দেন। নবী করিম (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেন যদি কোনো মুসলিম ব্যক্তির উপর দুশ্চিন্তা, রোগ-ব্যাধি, কষ্ট ও পেরেশানী আসে, এমনকি যদি একটি কাঁটাও তার দেহে ফুটে, এসবের মাধ্যমে আল্লাহ্‌ তাআলা তার গুণাহসমূহ ক্ষমা করে দেন। মুসলিম শরিফ। তাই স্বাভাবিক মৃত্যুর চেয়ে অসুস্থতায় ভোগে মৃত্যু হওয়া কিছুটা ভালো। কারণ এটা গুনাহ মাফ হওয়ার জন্য উসিলা মাত্র। তাই অসুস্থতার কষ্টকে কখনো শাস্তি মনে করা যাবেনা কারণ এর মাধ্যমে আল্লাহ্‌ তা’আলা আমাদের অন্তরের হিংসা বিদ্বেষ, অহংকার,ও বিভিন্ন ধরনের ময়লা দূর করে আমাদেরকে জান্নাতে যাওয়ার উপযোগী করে গড়ে তুলেন। অনেক মানুষের মৃত্যুর সময়ে তওবা করার সুযোগও হয় না হঠাৎ করেই মারা যায় তাদের কি অবস্থা হবে? তাই আমাদের প্রতি মুহূর্তে আল্লাহ্‌র কাছে অন্যায় কাজ থেকে ক্ষমা চাওয়া উচিত। আল্লাহ পাক যাকে চাইবেন নিজ অনুগ্রহে ক্ষমা করে দেবেন আর যাকে চাইবেন শাস্তি দেবেন। আর সেইটা কাউকে দুনিয়াতে আর কাউকে পরকালে। আল্লাহ তা’আলা মুমিন বান্দাকে জাহান্নামে দেবেন শাস্তির জন্য নয় বরং তার অন্তরের ময়লা দূর করার জন্য। কারো ময়লা পরিষ্কার হয়ে যাবে তওবা ও চোখের দুই ফোঁটা অশ্রুতেই। আবার কারো ময়লা পরিষ্কার হবে অসুস্থতায় ভোগে কষ্ট করার দ্বারা। আর কারো ময়লা দূর হবে কবরের আজাবে। বান্দা ইবাদত করার জন্য জান্নাতে যাবে ঠিকই তবে অন্তরের ময়লা দূর করার জন্য তাকে সাময়িকের জন্য হলেও শাস্তি পেতে হবে সেই শাস্তিটা মৃত্যুর আগেও হতে পারে আবার মৃত্যুর পর কবরেও হতে পারে। যে গুনাহ যত বেশি মারাত্মক হবে সেই গুনাহের জন্য ততবেশি আমাদের জাহান্নামের আগুনে জ্বলতে হবে এটাই আল্লাহর বিধান। তাই আমাদের উচিত গুনাহমুক্ত একটি জীবন গড়ে তোলার চেষ্টা করা এবং সবসময়ে আল্লাহ্‌ তাআলার কাছে এই দোয়া করা যেনো আল্লাহ্‌ তাআলা আমাদেরকে সবাইকে ছোটো বড় প্রতিটি গুনাহ থেকে বেঁচে থাকার তৌফিক দান করেন আমীন।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2021
Design By Rana