শুক্রবার, ০১ Jul ২০২২, ১০:০১ পূর্বাহ্ন

সবাই এখন ওমিক্রনে আক্রান্ত

সবাই এখন ওমিক্রনে আক্রান্ত

একুশে ডেস্ক:
দেশে এখন যারা করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন, তাদের সবার শরীরেই নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন পাওয়া যাচ্ছে বলে জানিয়েছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইন্সটিটিউট (আইইডিসিআর)। রোববার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ১ থেকে ২২ ফেব্রুয়ারি দেশের ৫টি বিভাগে কোভিড রোগীদের শরীর থেকে সংগ্রহ করা ৭৪টি নমুনার জেনোম সিকোয়েন্স করে এই তথ্য পাওয়া গেছে।
গবেষণায় দেখা গেছে, ওই রোগীদের ১০০ শতাংশই ওমিক্রনে সংক্রমিত। তাদের মধ্যে ৯৬ শতাংশ ওমিক্রনের ‘বিএ.২’ উপধারায় এবং বাকি ৪ শতাংশ ‘বিএ ১’ উপধারায় আক্রান্ত। যে ৪ শতাংশের মধ্যে ওমিক্রনের বিএ.১ ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া গেছে, তারা সবাই ঢাকার। আইইডিসিআর জানিয়েছে, ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগ থেকে নমুনা নিয়ে এই গবেষণা চালানো হয়েছে।
এর আগে গত ১ থেকে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত সারাদেশ থেকে ২২০টি নমুনার জেনোম সিকোয়েন্স করে আইইডিসিআর জানিয়েছিল, ৮৭ শতাংশ রোগী ওমিক্রনে এবং বাকি ১৩ শতাংশ গতবছর প্রাধান্য বিস্তার করা ডেল্টা (ভারতীয়) ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত। ওই রোগীদের মধ্যে যারা জানুয়ারির দ্বিতীয়ার্ধে আক্রান্ত হয়েছিলেন, তাদের ৯৮ শতাংশই ওমিক্রনে সংক্রমিত ছিলেন।
গত বছরের ৯ ডিসেম্বর বাংলাদেশে দুজন নারী ক্রিকেটারের শরীরে প্রথম ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া যায়। ওই দুজন জিম্বাবুয়ে থেকে ফিরেছিলেন। পরে তারা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরেন। তীব্র ছোঁয়াচে ওমিক্রনের দাপটে জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহ থেকেই দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকে আশঙ্কাজনক হারে। ফেব্রুয়ারিতে তা আবার কমতে শুরু করে।
আইইডিসিআরের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডা. এ এস এম আলমগীর বলেন, যে কোনো পরিবর্তনই ইতিবাচক হবে এমন নয়। ইতিবাচকও হতে পারে, নেতিবাচক প্রভাবও পড়তে পারে।
পরিস্থিতি বর্তমানের চেয়ে ভালো হতে পারে, এরচেয়ে ভীতিকরও হতে পারে। দেখতে হবে পরিবর্তন হলে ভাইরাসের সংক্রমণ সক্ষমতা কতটা বাড়ে বা কমে। এখন যে অবস্থায় আছে, তাতে আমরা হয়ত কিছুটা স্বস্তিতে থাকতে পারব। এরপরও বলব সতর্কতার বিকল্প নেই। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2021
Design By Rana