মঙ্গলবার, ২৩ Jul ২০২৪, ০৫:৪১ অপরাহ্ন

স্বাধীনতা কাপের তৃতীয়বার চ্যাম্পিয়ন কিংস

স্বাধীনতা কাপের তৃতীয়বার চ্যাম্পিয়ন কিংস

একুশে ডেস্ক :

হাতাহাতি। লাল কার্ড। ছয় মিনিটের মধ্যে এক দল এগিয়ে যায়। সমতায় ফেরে অন্য দল। ফাইনালের মতো ফাইনাল দেখেছেন দর্শকরা।

গত বছর ফেডারেশন কাপের ফাইনালে হারের প্রতিশোধও নিল তারা। একই ব্যবধানে সাদা-কালোদের কাছে হেরে ফেডারেশন কাপের শিরোপা খুঁইয়েছিল কিংস। সমর্থকদের হতাশ করেনি দুই দল। উপভোগ্য একটি ম্যাচই উপহার দিয়েছে কিংস ও মোহামেডান।

নয় বছর পর স্বাধীনতা কাপের ফাইনালে উঠেছিল মোহামেডান। লক্ষ্য ছিল ট্রফি ক্লাবে নিয়ে যাওয়া। কিন্তু থামতে হলো তাদের। স্বাধীনতা কাপের তিনটি ট্রফি জিতে মোহামেডানের পাশে নাম লিখিয়েছে কিংস।

সেরা গোলদাতার তালিকা এবার লম্বা। সর্বাধিক গোলদাতার পুরস্কার জেতা তিনজনই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। কিংসের দরিয়েলতন গোমেজ, ঢাকা আবাহনীর জোনাথন ফার্নান্দেজ এবং শেখ জামালের হিগোর লিটে। তিনজনই করেছেন তিনটি করে গোল। খেলা শেষে দরিয়েলতন নিজ হাতে পুরস্কার নিলেও উপস্থিত ছিলেন না বাকি দুই ব্রাজিলিয়ান।

ম্যাচের শুরু থেকে আক্রমণাত্মক ছিল কিংস। যথারীতি মালির ফরোয়ার্ড সোলেমানে দিয়াবাতে প্রধান ভরসা ছিলেন মোহামেডানের। প্রথমার্ধে গোলের মুখ দেখেনি কেউ। বিরতির পর জমে ওঠে ম্যাচ। ৪৮ মিনিটে ১০ জনের দলে পরিণত হয় কিংস। মোহামেডানের ওমর বাবুকে বিশ্রীভাবে ফাউল করায় সরাসরি লাল কার্ড পান উইঙ্গার রফিকুল ইসলাম। ১০ জনের কিংসকে পেয়ে পরের মিনিটেই সুযোগ কাজে লাগায় সাদা-কালোরা।

মোজাফফরভের কর্নারে বক্সে জটলার মধ্যে হেডে জাল খুঁজে নেন এমানুয়েল সানডে (১-০)। পিছিয়ে পড়া কিংস দ্রুত ধাক্কা সামাল ওঠে। সময় নেয় মাত্র দুই মিনিট। দুই ব্রাজিলিয়ান মিগুয়েল ফার্নান্দেজ ও রবসন দ্য সিলভা রবিনহোর রসায়নে আক্রমণে যায় কিংস, বক্সে রবিনহোর প্রচেষ্টা সাদা-কালোর এক ডিফেন্ডারের গায়ে লাগে।

ফিরতি বল জালে জড়ান রাকিব হোসেন (১-১)। বাকিটা সময় ১০ জনের কিংস রক্ষণ সামলে আক্রমণে যাওয়ার চেষ্টা করে। ৮৬ মিনিটে জয়সূচক গোল পায় তারা। দরিয়েলতন গোমেজ করেন জয়সূচক গোলটি (২-১)।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2021
Design By Rana