মঙ্গলবার, ২৩ Jul ২০২৪, ০৫:৩৬ অপরাহ্ন

কুলিয়ারচরের ফরিদপুর থেকে ৩০৫ বস্তা ভারতীয় চিনিসহ আটক-২, ট্রলার জব্দ

কুলিয়ারচরের ফরিদপুর থেকে ৩০৫ বস্তা ভারতীয় চিনিসহ আটক-২, ট্রলার জব্দ

 ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি মোঃ মাইন উদ্দিন : কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে অভিনব কায়দায় সরকারী শুল্ক ফাঁকি দিয়ে চোরাই পথে আনা ৩০৫ বস্তা ভারতীয় চিনিসহ সুমন মিয়া (৩০) ও নূরুল হক (৪৫) নামে ২ ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। এ সময় চিনি বহনকারী ইঞ্জিনচালিত একটি ট্রলারসহ ট্রলারে থাকা ১২০ বস্তা ধানের তুষ জব্দ করে। শুক্রবার (১৫ ডিসেম্বর) সকাল ১১ টার দিকে উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়নের ফরিদপুর নামাপাড়া মকবুল চেয়ারম্যানের বাড়ীর পাশে ব্রহ্মপুত্র নদের ঘাটে ভারতীয় চিনি আনলোড করার সময় ৩০৫ বস্তা ভারতীয় চিনি, ১২০ বস্তা ধানের তুষ ও একটি ট্রলার জব্দ করে চিনির মালিক সুমন মিয়াকে আটক করে। আটককৃত সুমন মিয়া কুলিয়ারচর উপজেলার ফরিদপুর গ্রামের আঙ্গুর মিয়ার ছেলে। সে স্থানীয় ফরিদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম আজিজ উল্ল্যাহ’র খুবই কাছের মানুষ হওয়ায় অবৈধভাবে চোরাই পথে ভারতীয় চিনি এনে বিক্রি করে আসছে বলে জানা যায়। আটককৃত ট্রলারের মাঝি নূরুল হক সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জ উপজেলার ফতেহপুর গ্রামের আব্দুল আজিজ মিয়ার ছেলে। তিনি বলেন, কালাম নামে এক ব্যক্তি তাদের ট্রলারটি ৪০ হাজার টাকায় ভাড়া করে সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ থেকে এসব মালামাল কুলিয়ারচরের ফরিদপুর আনেন। কুলিয়ারচর থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই দেব দুলাল সাংবাদিকদের জানান, ব্রহ্মপুত্র নদী পথে আনা ফরিদপুর নামক স্থানে অবৈধ মালামাল আনলোড করার খবর পেয়ে শুক্রবার সকাল ১১ টার দিকে একটি ট্রলার তল্লাশি করে দেখা যায়, অভিনব কৌশলে ট্রলারের নীচের অংশে ভারতীয় চিনি ও উপরের অংশে ধানের তুষ রাখা আছে। ১২০ বস্তা ধানের তুষ সরিয়ে ভারতীয় ৩০৫ বস্তা চিনি পাওয়া যায়। এ ব্যাপারে কুলিয়ারচর থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ লূৎফর রহমান সাংবাদিকদের জানান, অবৈধ পথে আনা ৩০৫ বস্তা চিনি, ১২০ বস্তা ধানের তুষ ও একটি ইঞ্জিন চালিত ট্রলারসহ ২ জনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানার এসআই দেব দুলাল বাদী হয়ে মামলার প্রক্রিয়া চলছে। এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত কোন মামলা হয়নি।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2021
Design By Rana