শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:৩৫ পূর্বাহ্ন

আজই মাঠে গেইল-মাশরাফি!

আজই মাঠে গেইল-মাশরাফি!

একুশে ডেস্ক:
বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) অষ্টম আসর মাঠে গড়িয়েছে শুক্রবার। হয়ে গেছে আসরের চারটি ম্যাচ। সেখানে দেখা যায়নি ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক এই টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের সফলতম দুই তারকা ক্রিস গেইল আর মাশরাফি বিন মর্তুজাকে। তবে এক দিনের বিশ্রাম দিয়ে আজ যখন আবার মাঠে ফিরতে চলেছে বিপিএল, তখন দুই তারকাকে এদিনই মাঠে দেখার অপেক্ষা ঘুচে যেতে পারে। যদি তাই হয়, তাহলে বর্ষীয়ান দুই ক্রিকেটারকে আজ দেখা যাবে শত্রুবেশে। কেননা, মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হবে গেইলের ফরচুন বরিশাল আর মাশরাফির মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা। সন্ধ্যায় দিনের অপর ম্যাচে মুশফিকুর রহিমের খুলনা টাইগার্সের প্রতিপক্ষ মেহেদী হাসান মিরাজের চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স।
বিপিএলের শুরু থেকেই আছেন গেইল, খেলেছেন প্রতিটি আসরেই। প্রথম আসরে তিনি ছিলেন বরিশালের ফ্র্যাঞ্চাইজিতে। নিজের প্রথম ম্যাচেই সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন। সব মিলে খেলেছিলেন পাঁচ ম্যাচ, সেঞ্চুরি ছিল দুটো। দ্বিতীয় আসরে এসেছিলেন একটি ম্যাচের জন্য, ঢাকার জার্সিতে সেই ম্যাচেও হাঁকিয়েছিলেন সেঞ্চুরি। সব মিলে বিপিএলে ৪২টি ম্যাচ খেলেছেন। তাতে ৪১.১৬ গড়ে করেছেন ১ হাজার ৪৮২ রান। স্ট্রাইক রেট ১৫৬.৫৯, টুর্নামেন্টে হাজার রান করা ব্যাটারদের মধ্যে তার স্ট্রাইক রেটই সেরা। ক্যারিবীয় ব্যাটিং দানবের ৫ সেঞ্চুরির রেকর্ডও অটুট।
২০১৭ সালের ফাইনালে রংপুর রাইডার্সের হয়ে গেইল খেলেছিলেন ১৪৬ রানের ইনিংস যেটি বিপিএলের ফাইনালেই নয়, টুর্নামেন্টেরই সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত। ওই ইনিংসের পথে ১৮টি ছক্কা হাঁকিয়েছিলেন এই বাঁহাতি, এক ইনিংসে যেটি ছক্কার বিশ^রেকর্ড হয়ে আছে আজও। বিপিএলে সব মিলে ১৩২টি ছক্কা হাঁকিয়েছেন তিনি। এখানেও তার ধারেকাছে নেই কেউ। এমন পারফরম্যান্স যার, তিনি তো নিজেকে ‘ইউনিভার্স বস’ বলবেনই। অষ্টম বিপিএল খেলতে রোববার ঢাকা এসেছেন তিনি। করিয়েছেন করোনা টেস্ট, সেই টেস্টের ফল নেগেটিভ হলে আজ সম্ভবত তাকে নিয়েই মাঠে নামবে সাকিব আল হাসানের বরিশাল। যদিও ৪২ বছর বয়সি গেইল তার সোনালি দিন পেছনে ফেলে এসেছেন, তবে নিজের দিনে এখনও তিনি বোলারদের ত্রাস।
ঢাকায় পা রেখে গেইল বলে দিয়েছেন, বিপিএলে নিজের পুরনো চেহারায় আবির্ভূত হতে চান। দলের প্রত্যাশা পূরণে মেলে ধরতে চান নিজেকে, ‘ফরচুন বরিশাল… ক্রিস গেইল, ইউনিভার্স বস, আমাকে নেওয়ার জন্য কৃতজ্ঞতা। সবার সঙ্গে দেখা করতে মুখিয়ে আছি আমি। অপেক্ষায় আছি দারুণ কিছু করার। প্রথম জয়ের জন্য অভিনন্দন, পরের ম্যাচের জন্য শুভ কামনা। আমি যখন দলে যোগ দেব, ইউনিভার্স বস তার কাজ শুরু করে দেবে। উষ্ণ আতিথেয়তার জন্য ধন্যবাদ।’
মাঠে নামলে গেইল যে তার কাজ শুরু করে দেবেন, আর সবার মতো মাশরাফি বিষয়টা বেশ ভালো করেই জানেন। তার অধিনায়কত্বে দুটো বিপিএল খেলেছেন গেইল, দুবারই চ্যাম্পিয়ন হয়েছে দল। সব মিলে চারবার বিপিএলে নিজ দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে শিরোপা জিতিয়েছেন মাশরাফি। একবারের বেশি এই কীর্তি নেই কারও। গেইলের মতো তিনিও অবশ্য সোনালি দিন পেছনে ফেলে এসেছেন। তবে বোলার মাশরাফি এখনও দারুণ। পিঠে ব্যথা থাকায় ঢাকার প্রথম দুই ম্যাচে ছিলেন না। দুটো ম্যাচই হেরেছে মাহমুদউল্লাহর নেতৃত্বাধীন দলটি। এবার তারা আসরের অন্যতম সেরা দল বরিশালের সামনে।
যেহেতু দিনের প্রথম ম্যাচ এটি, গেইলের তুলনায় মাশরাফির কাজটাই সহজ। আগের দুটো দিন কিন্তু তেমনই বলছে। প্রথম ম্যাচে উইকেট থাকে বোলারদের পক্ষে। এমন উইকেট পছন্দ হচ্ছে না বরিশাল কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের, ‘কোনো অভিযোগ নেই।… মানিয়ে নিয়ে খেলতে হবে। এক কথায় বললে, যেমনটা আশা করছি, ওরকমটা হচ্ছে না।’
Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2021
Design By Rana